শনিবার ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ
শনিবার ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

দোয়ারাবাজারে সেরা শিক্ষার্থীর পুরুষ্কার পেলেন নবম শ্রেনীর ছানিয়া

আজকের খবর। ব্রেকিং নিউজে।

সোহেল মিয়া,দোয়ারাবাজার(সুনামগঞ্জ)

সেরা শিক্ষার্থী হিসেবে পুরস্কার নিচ্ছেন দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউপির ঘিলাছড়া স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ছানিয়া।বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে কয়েকটি ক্যাটাগরিতে বৃহস্পতিবার এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে বলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শানুর আলী জানান ।

বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারি বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরুষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এ পুরুষ্কার তুলে দেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,গভর্নিংবডির সভাপতি মোশাহিদ আলী।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক শানুর আলী এতে বক্তব্য দেন। শিক্ষানুরাগি সদস্য কয়ছর আহমদ চৌধুরি,অভিভাবক সদস্য জয়নাল আবেদীন ও নাজমুল হক, স্কুলের শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগন এসময় উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়,২০২২ সালের প্রথম সেমিস্টার,দ্বিতীয় সেমিস্টার ও ফাইনাল পরিক্ষায় সর্বোচ্ছ ও ভালো রেজাল্ট,নিয়মিত স্কুলে উপস্থিত হওয়া,নিয়মিত পড়া শিখে আসা। সঠিক সময়ে স্কুলে উপস্থিত।শিক্ষকদের সাথে সদাচরন,স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে নম্র ভদ্র,সুন্দর ব্যবহার,চালচলন ইত্যাদির দিক থেকে ছানিয়া স্কুলের সেরা শিক্ষার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়।
উল্লেখ্য, ছাতক উপজেলার ইসলাম বাজার মাদ্রাসা হতে সরকারি মেধাবৃত্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহন করে ট্যালেন্ডপুল বৃত্তি অর্জন করার মধ্যদিয়ে পঞ্চম শ্রেনী পাস করে ছানিয়া। বর্তমান ক্লাস রোল
দ্বিতীয় হলেও গুণগত মানের দিক দিয়ে স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে এগিয়ে রয়েছে মেধাবী এই শিক্ষার্থী।
এছাড়াও,শিশুকাল থেকেই বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে সুনাম কুড়িয়েছে ছানিয়া। নিজের অংশগ্রহনকৃত প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হওয়ার মধ্যদিয়ে পরিবারের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছে নবম শ্রেনী পড়ুয়া এই শিক্ষার্থী। সে ছাতক উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের পাঁন্ডব গ্রামের আনছার আলী’র মেয়ে।
ছানিয়ার বাবা আনছার আলী বলেন, ‘সকল বাবা-মা চায় সন্তান লেখাপড়ায় ভালো করুক। লেখা পড়া করে ভালো মানুষ হৌক।আমার কষ্ট আজ সফল হয়েছে। মেয়ে আজ আমার মুখ উজ্জ্বল করেছে।’ স্কুলের কয়েকশত শিক্ষার্থীর মাঝে সে আজ আলাদা ভাবে প্রকাশ পেয়েছে। ছানিয়ার স্বপ্ন সে ডাক্তার হবে, আমি আশাকরি আমার মেয়ে একদিন ডাক্তার হয়ে ঘিলাছড়া স্কুল তথা এই অঞ্চলের জন্য সুনাম বয়ে আনবে।

শিক্ষার্থী ছানিয়া বলেন,
আমার বাবা-মা খেয়ে না খেয়ে আমাকে লেখাপড়া করাচ্ছেন,শিক্ষকগন তাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে আমাদেরকে শিক্ষিত নাগরিক হওয়ার মধ্যদিয়ে ভালো মানুষ হতে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আমার স্বপ্ন আমি লেখা পড়া করে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার মধ্যদিয়ে একজন মানবিক ডাক্তার হয়ে আমার মা -বাবার স্বপ্ন পূরন করে শিক্ষকদের মুখ উজ্জ্বল করব।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শানুর আলী জানান,স্কুলের গভর্নিং বডির সভাপতির দিকনির্দেশনায় আমরা এই উদ্যোগটি নিয়ে শিক্ষকদের সমন্নয়ে একটি বোর্ড গঠন করেছি,সেরা শিক্ষার্থী নির্বাচনের বোর্ডে শিক্ষার্থীদের নাম অঙ্গাত রেখে আমরা ছানিয়াকেই উপযুক্ত ও একজন আদর্শ মেধাবী শিক্ষার্থী হিসেবে নির্বাচিত করেছি।
ছানিয়া লেখাপড়া মনোযোগী,নিয়মিত শ্রেনীকক্ষে উপস্থিত,আদব,পরিক্ষায় ভালো রেজাল্টসহ একজন ভালো শিক্ষার্থীর যাবতীয় গুনের দিক দিয়ে ছানিয়া স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের এক অনু প্রেরনা,রুল মডেল। আমি মনে করি ছানিয়াকে ফলো করে স্কুলের অন্য শিক্ষার্থীরা নিজের মেধা যাচাই করে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হবে।

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *