মঙ্গলবার ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে উপজেলায় প্রতিবন্ধী যুবককের হাত-পা বেঁধে এসিড নিক্ষেপ, আটক ২

আজকের খবর। ব্রেকিং নিউজে।

প্রিত্তম কুর্মী সুজিত,শ্রীমঙ্গল মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ফজর আলী (৩৫) নামে এক বাকপ্রতিবন্ধী যুবককে আটকে রেখে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে রাতভর নির্যাতনের পর এসিড নিক্ষেপের অভিযোগ উঠেছে।

বাক প্রতিবন্ধি ফজর আলী রিমাই মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় কমলগঞ্জ থানা পুলিশ দুজনকে আটক করেছে।
শনিবার সকালে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন-সুফিয়ান মিয়া ও আল আমিন মিয়া।
কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। অপরদিকে এসিডে ঝলসে যাওয়া গুরুত্বর আহত বাক প্রতিবন্ধি ফজর আলী বর্তমানে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফজর আলী প্রায় এক বছর ধরে সুফিয়ান মিয়ার বাড়িতে কাজ করছেন। কিন্তু তাকে কোনো পারিশ্রমিক না দিয়েই কাজ করানো হচ্ছিল। কিছুদিন আগে সুফিয়ানের কাছে ফজর আলী তার পারিশ্রমিকের টাকা চাইলে দেব-দিচ্ছি বলে কালক্ষেপণ করেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে আবারও টাকা চাইতে গেলে সুফিয়ান গংরা রাগান্নিত হয়ে ফজরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। একপর্যায়ে তাকে আটকে রেখে রশি দিয়ে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন চালান। পরে ফজরের মাথায়, মুখে, চোখে, কানে, কাঁধে ও পিঠে এসিড নিক্ষেপ করে একই এলাকার খিজির মিয়ার বাড়ির পাশের রাস্তায় ফেলে যান।

স্থানীয়রা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নেন। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় শুক্রবার ভুক্তভোগীর ছোট ভাই বাছির আলী বাদী হয়ে স্থানীয় সুফিয়ান মিয়া, আল আমিন মিয়া, সিপন মিয়া, খিজির মিয়াসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন, ‘বাকপ্রতিবন্ধী যুবককে এসিড নিক্ষেপ করে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত দুজনকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া।

Spread the love